Wednesday, February 28, 2024

এরশাদের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে কাদের সিদ্দিকী

তারিখ:

প্রয়াত সেনাশাসক হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ৯৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউটে জাতীয় পার্টি (জাপা) আয়োজিত আলোচনা সভায় যোগ দেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আবদুল কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার পর বিএনপির সমালোচক হিসেবে আবির্ভূত হওয়া কাদের সিদ্দিকী গত বছরের আগস্টে জাপার বনানী কার্যালয়ে গিয়ে দলটির চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের সঙ্গে বৈঠক করেন। গুঞ্জন রয়েছে, দুই দলের জোট হতে পারে। বিএনপি অংশ না নিলে আগামী নির্বাচনে বিকল্প হবে জাপার নেতৃত্বাধীন জোট। ধর্মভিত্তিক দলগুলোর আরেকটি জোট গড়ার চেষ্টা চলছে। বিএনপি ও সমমনারা ভোট বর্জন করলে এই দুই জোট নির্বাচনে ‘অংশগ্রহণমূলক’ করবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, সেনাবাহিনী থেকে রাজনীতিতে আসা সবাইকে ঘৃণা করি। শুধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে শ্রদ্ধা করি, ভালোবাসি। কারণ তিনি জেলে থেকে দুইবার পাঁচটি করে আসনে নির্বাচনে জয়ী হয়েছিলেন। অত্যন্ত সুন্দর মানুষ ছিলেন এরশাদ। বঙ্গবন্ধুর পর পল্লীবন্ধুকে ভালোবেসেছি। জাতীয় পার্টির নেতারা জানেন না দেশের মানুষ এরশাদকে কত ভালোবাসে। বটগাছের নীচে ঘাস জন্মে না। তাই রাজপথে নেমে জাতীয় পার্টিকে গায়ে রোদ লাগাতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে জি এম কাদের সরকারের কড়া সমালোচনা করেন। তিনি বলেছেন, শুধু এরশাদের শাসনামলেই প্রকৃত উন্নয়ন হয়েছিল। এখন উন্নয়নের নামে নামে রক্তশূন্য দেশের গায়ে গয়না পরানো হচ্ছে। এরশাদের কারণেই যমুনা সেতুর মতো মেগা প্রকল্প হয়েছিল। তদন্ত করলে প্রমাণ হবে, এখন মেগা প্রকল্পের নামে কী দুর্নীতি হচ্ছে। এরশাদ মানুষের জন্য উন্নয়ন করেছিলেন বলেই, ৩২ বছর ক্ষমতার বাইরে থেকেও টিকে আছে জাপা।

জাপা ভেঙে জন্ম নেওয়া দল জেপির মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বলেন, এরশাদ ছিলেন দূরদর্শী রাষ্ট্রনায়ক।

আলোচনা সভায় জাপার সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু, কো-চেয়ারম্যান এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, কাজী ফিরোজ রশীদ, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলাসহ জ্যেষ্ঠ নেতারা বক্তৃতা করেন। তবে ছিলেন না বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। তিনি গত সোমবার গুলশানের বাসভবনে অনুসারীদের নিয়ে পৃথকভাবে পালন করেন এরশাদের জন্মদিন।

জনপ্রিয় সংবাদ