Thursday, February 29, 2024

সুপার পর্বে সুপার শুরুর প্রত্যাশা সাকিবের

তারিখ:

কয়েক দিন ধরে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসীদের মধ্যে আলোচনার বিষয় হয়ে গেছে বাংলাদেশ-নেদারল্যান্ডস ম্যাচ। সবার মধ্যেই একটা বিশ্বাস তৈরি হয়েছে, বিশ্বকাপের সুপার টোয়েলভে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সহজ প্রতিপক্ষ পেয়েছে বাংলাদেশ। অর্থাৎ শ্রীলঙ্কা-ওয়েস্ট ইন্ডিজের চেয়ে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে খেলে ম্যাচ জেতা সহজ হবে। সমর্থকদের দাবি উঠে এসেছে মিডিয়ায়ও। সাধারণ মানুষের সঙ্গে মেলামেশা না করায় সাকিবদের কাছে সমর্থকদের মতামত পৌঁছায়নি। তবে অনলাইনের সুবিধা কাজে লাগিয়ে মিডিয়ায় প্রচারিত খবরগুলো খুব সহজেই পড়ে ও দেখে নিয়েছেন তাঁরা। যে কারণে নেদারল্যান্ডসকে সহজ প্রতিপক্ষ হিসেবে দেখা এবং খেলোয়াড়দের মধ্যে প্রত্যাশার চাপ বাড়িয়ে দেওয়ার পেছনে মিডিয়ার ভূমিকাই বেশি দেখছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। এর অর্থ এই নয়, নেদারল্যান্ডসকে হারাতে চান না সকিব। তিনি খুব করে চান, আজ নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে বিশ্বকাপের শুরুটা ভালো করতে। মূলত চাপহীন ক্রিকেট খেলে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতেই ডাচদের সহজ প্রতিপক্ষ ভাবতে রাজি নন সাকিব। সুপার টোয়েলভে গ্রুপের সেরা তিন প্রতিপক্ষ ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকার মতো নেদারল্যান্ডস আর জিম্বাবুয়েকেও বড় দলের মর্যাদার আসনে রেখে আজ সেরা ক্রিকেটটা খেলে তাসমানিয়ার হোবার্টের বেলেরিভ ওভালে বিজয়ের হাসি হাসতে চান তিনি।

বাংলাদেশ জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করতে পারলে ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনের সাকিবকে ম্যাচ-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে দেখা যাবে না। খুশির পরশ মাখানো হাস্যোজ্জ্বল সাকিব হাজির হবেন বেলেরিভ ওভালের সংবাদ সম্মেলন কক্ষে। কারণ টানা হারের বৃত্তভাঙা বিশ্বকাপের মতো বড় মঞ্চে করতে পারার চঞ্চল চিত্র জুড়ানোর আনন্দে উদ্বেলিত হওয়া। গত টি২০ বিশ্বকাপ থেকে ক্রিকেটারদের মাথার ওপর যে বোঝা দিন দিন ভারী করে দিয়েছে পরাজয়ের পর পরাজয়, আজ জিততে পারলে সেই চাপের বোঝা নেমে যাবে মুহূর্তে। বিশ্বকাপ ভেন্যুতে আসার পর থেকে সাকিবরা মিডিয়া থেকে দূরে থাকার যে কৌশল নিয়েছেন, সেটাও হয়তো থাকবে না। এ কারণেই হয়তো সাকিবরা সর্বসাধারণের মতো নেদারল্যান্ডসকে সহজ করে দেখছেন না। বাংলাদেশ অধিনায়কের মতে, ‘আমরা বিশ্বকাপের পাঁচটা ম্যাচের প্রস্তুতি নিয়ে এসেছি। যার সঙ্গেই খেলি, প্রস্তুতি একই থাকবে, হোক তা নেদারল্যান্ডস বা দক্ষিণ আফ্রিকা বা পাকিস্তান, ভারত, জিম্বাবুয়ে। কারণ সবাই যোগ্য দল হিসেবেই এখানে এসেছে। নেদারল্যান্ডস আসাতে বাংলাদেশ দল বোধহয় স্বস্তি বোধ করছে- এই ভাবনাও আপনারা তৈরি করেছেন। আমরা এভাবে কখনোই প্রস্তুতি নিই না। আমার মনে হয় না পৃথিবীর কোনো দল এভাবে চিন্তা করে। আমাদের দলের ভেতর এমন কোনো অনুভূতি নেই। যদি শ্রীলঙ্কা বা ওয়েস্ট ইন্ডিজ আসত, তখন যে প্রস্তুতি থাকত, অন্যান্য দলের ক্ষেত্রেও একই প্রস্তুতি থাকবে। স্বস্তি কিনা এ নিয়ে যেসব আলোচনা চলছে, সেটা অবশ্যই মিডিয়ার তৈরি করা।’

জনপ্রিয় সংবাদ