Friday, February 23, 2024

রানির প্রকাশ্য শেষকৃত্যানুষ্ঠানের সমাপ্তি

তারিখ:

দিনটি শুরু হয়েছিল ওয়েস্টমিনস্টার হলে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় রানির শায়িত অবস্থার উপসংহার টানার মাধ্যমে। এরপর তার কফিন শোভাযাত্রা করে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবিতে নিয়ে আসা হয়।

সেখানে প্রায় দু’ হাজার মানুষ এক শেষকৃত্যানুষ্ঠানে অংশ নেন, যাদের মধ্যে ছিলেন বহু রাষ্ট্র এবং সরকার প্রধান।

এরপর এক বিশাল শোকযাত্রা কফিন নিয়ে ওয়েলিংটন আর্চের দিকে যাত্রা করে, যেটি ব্রিটিশ ইতিহাসের এক গৌরবময় প্রতীক।

রানির কফিন এরপর একটি শবযানে রাখা হয়। এটি যাত্রা করে উইন্ডসরের দিকে।

রানির কফিন নিয়ে তৃতীয় শোকমিছিলটি উইন্ডসরের দীর্ঘ রাস্তা পেরিয়ে সেইন্ট জর্জেস চ্যাপেলে যায়। সেখানে রানির স্মরণে আরেকটি প্রার্থনায় যোগ দেন প্রায় আটশ’ মানুষ।

সন্ধ্য সাড়ে সাতটায় রাজপরিবারের সদস্যরা সেইন্ট জর্জেস চ্যাপেলে যান রানিকে তার স্বামীর পাশে সমাহিত করতে।

রানিকে সমাহিত করার প্রক্রিয়া শুরু
রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে সমাহিত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এরইমধ্যে রাজকীয় সমাধিকক্ষে রানির মরদেহ নামানো হয়েছে। আজ পারিবারিক সদস্যদের উপস্থিতিতে তাকে সমাহিত করা হবে। স্বামী ফিলিপের পাশেই সমাহিত হচ্ছেন তিনি।

এর আগে সেইন্ট জর্জেস চ্যাপেলে আনুষ্ঠানিকভাবে রানির কফিনের ওপর থেকে রাজমুকুট এবং রাজদন্ড সরিয়ে নেয়া হয়।

বিবিসি বলছে, এগুলো আবার টাওয়ার অব লন্ডনে ফেরত যাবে। তবে আপাতত সেগুলো ডীন অব উইন্ডসরের কাছে দেয়া হয়েছে। তিনি সেগুলো সযত্নে রেখেছেন বেদির ওপর।

এদিকে উইন্ডসর ক্যাসেলের সেইন্ট জর্জেস চ্যাপেলে রানির জন্য প্রার্থনা শুরু হয়েছে। সেখানে আশীর্বাদ অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন ক্যান্টারবারির আর্চবিশপ জাস্টিন ওয়েলবি।

প্রার্থনায় তিনি বলেন, শান্তিতে যাও; সাহসী হও, যা ভাল তা দৃঢ়ভাবে ধরে রাখো, মন্দের বদলে কাউকে মন্দ করো না; দুর্বল হৃদয়কে শক্তিশালী কর, দুর্বলকে সমর্থন কর, দুঃখীকে সাহায্য কর, সকল মানুষকে সম্মান কর, ভালবাসা এবং প্রভুর সেবা কর, পবিত্র আত্মার শক্তিতে আনন্দ কর।

তিনি আরও বলেন, এবং সর্বশক্তিমান ঈশ্বরের আশীর্বাদ, পিতা, পুত্র এবং পবিত্র আত্মা তোমাদের মধ্যে থাকুক এবং সর্বদা তোমাদের সাথে থাকুক। আমিন।

এই প্রার্থনায় রানির বর্তমান এবং সাবেক সাহকারিরা যোগ দিয়েছেন।সসেইন্ট জর্জেস চ্যাপেলেই আজকের আনুষ্ঠানিকতার সমাপ্তি টানা হবে।

এই সমাহিত করার অনুষ্ঠানে কেবল রাজপরিবারের সদস্যরাই থাকতে পারবেন।

সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে পৌঁছেছে রানির কফিন

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের শেষকৃত্যের মিছিল এখন সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে পৌঁছেছে। কিছুক্ষণের মধ্যেই রানির কফিন চ্যাপেলের নির্দিষ্ট স্থানে রাখা হবে। এখানেই শেষ হবে তার শেষকৃত্যের সকল আনুষ্ঠানিকতা।

চ্যাপেলের বাইরে রাজপরিবারের অশ্বারোহী সদস্যরা সারিবদ্ধভাবে অবস্থান নিয়েছে। রাজপরিবারের সদস্য এবং রাষ্ট্রীয় নেতারা সেখানে আসার সাথে সাথে তাদের অস্ত্র উপস্থাপন করে উইন্ডসর ক্যাসলের রক্ষীরা।

২০২১ সালের এপ্রিল মাসে এই চ্যাপেলে পরিচালিত হয়েছিল ডিউক অফ এডিনবার্গ অর্থাৎ রানির স্বামী প্রিন্স ফিলিপের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া।

রানিকে শেষবিদায় জানালো জনতা

উইন্ডসরের ঐতিহাসিক লং ওয়াক বরাবর শেষ যাত্রা করছে রানির কফিন। মিছিলটি উইন্ডসর ক্যাসেলের চতুর্ভুজ হয়ে ইঞ্জিন কোর্টে যাচ্ছে।

নরম্যান আর্চ, চ্যাপেল হিল, প্যারেড গ্রাউন্ড এবং হর্সশু ক্লোইস্টার আর্চ অতিক্রম করবে এ শবযাত্রা। সেখানে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার আগে রানিকে গার্ড অফ অনার দেয়া হবে।

এদিকে শেষবারের মতো রানির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ব্রিটেনের জনসাধারণ। রানির শবযাত্র একবার উইন্ডসর ক্যাসেলের গেটের ভেতরে চলে গেলে সেখানে সীমিত করা হবে জনসাধারণের প্রবেশ।

যারা রানির শেষকৃত্যানুষ্ঠানের দায়িত্বে রয়েছেন শুধুমাত্র তারাই প্রবেশ করার সুযোগ পাবেন। সেখানে রাজ পরিবারের সদস্যদের পাশপাশি থাকবেন আমন্ত্রিত অতিথিরা।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বলছে, শোকযাত্রা ভালোভাবে দেখা যাবে এমন জায়গা খুঁজে পেতে অনেকে সেখানেই রাত কাটিয়েছেন।

 

জনপ্রিয় সংবাদ