Sunday, February 25, 2024

আর্শদ্বীপের ক্যাচ মিসই কি ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট, যা বললেন বিশ্লেষকরা

তারিখ:

ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচ তখন অনেকটাই দুলছিল পেন্ডুলামের মতো। ১৮তম ওভার করছিলেন ভারতীয় লেগ স্পিনার রবি বিষ্ণয়। ১৬ বলে যখন পাকিস্তানের দরকার ছিল ৩২ রান, তখনই আসিফ আলীর দেয়া সহজতম ক্যাচ মিস করেন আর্শদ্বীপ সিং। এই ক্যাচ মিসই কি ছিল ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট? ক্রিকইনফোর আলাপচারিতায় সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটার রবিন উথাপ্পা যেন কিছুটা দার্শনিক বনে গেলেন এই প্রশ্নে। বললেন, একভাবে দেখলে বলতে হয়, হ্যাঁ। আরেকভাবে দেখলে এর উত্তর, না।

রবি বিষ্ণয়ের বলটি ছিল অফস্ট্যাম্পের বাইরে ফুল লেংথের। আসিফ আলী স্লগ সুইপ করতে গেলে টাইমিংয়ের গড়বড় করে ক্যাচ তুলে দিলেন শর্ট থার্ডে। ক্যাচিং প্র্যাকটিসেও সচরাচর যেরকম সহজ ক্যাচ দেয়া হয় না কাউকে, সেরকমই এক রুটিন বল ছেড়ে দিলেন আর্শদ্বীপ সিং। এই ক্যাচ মিসের ব্যাপারে রোহিত শর্মা, ভিরাট কোহলিরা যেমন পাশে দাঁড়িয়েছেন আর্শদ্বীপের; অনেকটা তেমনভাবেই মতামত দিয়েছেন রবিন উথাপ্পা। এরকম চাপের ম্যাচে সহজ ক্যাচও মিস হয়ে যেতে পারে। আর এ নিয়ে খুব বেশি কথা বলার কিছু নেই বলে রোহিত-কোহলিদের মতোই আর্শদ্বীপের প্রতি সদয় হয়েছেন উথাপ্পা।

পরে অবশ্য ম্যাচের নৈর্ব্যক্তিক বিশ্লেষণও করেন ভারতের সাবেক এই হার্ড হিটার। তিনি বলেন, পাকিস্তানের এই দলটি সংক্ষিপ্ততম ফরম্যাটের জন্য খুবই উপযোগী। পিএসএল দেখলে যে কেউ বুঝতে পারবে, সেখানে সফল হওয়া ক্রিকেটাররাই এসেছে জাতীয় দলে। এরকম একটা দলের বিপক্ষে তখন ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ কিছুটা হলেও ভারতের দিকে ছিল। কিন্তু এরকম একটা সুযোগ হাতছাড়া করার পর কিন্তু ‘মোমেন্টাম’ চলে যায় ঠিক উল্টোদিকে। আর এই ম্যাচেও ঠিক সেরকমটাই ঘটেছে বলে আমার ধারণা।

তবে এই ক্যাচ মিসের ইস্যুতে কিছুটা কঠোর মন্তব্য করেছেন ভারতের টেস্ট ক্রিকেটার চেতেশ্বর পুজারা। তিনি বলেন, ক্যাচ মিস হতেই পারে। আর চাপের সময় ক্যাচ মিসকে কেউ খুব বেশি দায়ীও করে না। কিন্তু লক্ষ্য করলে দেখা যাবে, এই ক্যাচের সময় আর্শদ্বীপের শরীরী ভাষা ছিল অনেকটাই অসতর্ক ও অমনোযোগী। আমার মনে হয়, ভারতীয় ফিল্ডিং কোচেরা এই বিষয়টা নিয়ে আরও কাজ করবেন। ক্যাচ মিস করা কোনো সমস্যা নয়। তবে আশা করি, আর্শ্বদ্বীপ এই ভুল থেকে শিখবে।

জনপ্রিয় সংবাদ