Friday, February 23, 2024

‘রাজনীতি থেকে বিএনপিকে বিতাড়িত করা হবে’

তারিখ:

দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় প্রয়োজনে রাজনীতি থেকে বিএনপিকে বিতাড়িত করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। আগামী নির্বাচনে অংশ না নিলে তারা অস্তিত্ব সংকটে পড়বে বলেও দাবি করেন তারা।

শনিবার (৪ জুন) রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে আয়োজিত সভায় বক্তৃতা করেন নেতারা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে স্বেচ্ছাসেবক লীগ। শনিবার সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে এ আয়োজনে রাজধানীর নানা প্রান্ত থেকে জড়ো হন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। স্লোগানে স্লোগানে মুখর করে তোলেন পুরো এলাকা।

প্রতিবাদ সমাবেশে আওয়ামী লীগ নেতারা বলেন, বিএনপিসহ তাদের জোট সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। দেশের উন্নয়ন তাদের পছন্দ হয় না বলেই একের পর এক উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। সরকারবিরোধী যেকোনো ষড়যন্ত্র প্রতিহত করা হবে বলেও হুঁশিয়ারি তাদের।

বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, যারা দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করবে, তাদের বাংলাদেশে রাজনীতি করার কোনো সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, বিএনপি স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি, এরা দেশের উন্নয়ন চায় না। যারা পদ্মা সেতু মানতে পারে না, সেই বিএনপি-জামায়াতই শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দেয়। বিএনপি খুনির ভাষায় কথা বলে। যখন দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে সরকার, তখন বিএনপি দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায়। এদের মোকাবিলা করা হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

বিএনপি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করার চেষ্টা করলে তাদের স্বেচ্ছাসেবক লীগ প্রতিহত করবে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, রাজনীতির মাঠ থেকে বিএনপিকে নির্মূল করা হবে। বাংলাদেশ থেকে তাদের উৎখাত করা হবে।

জনগণের রায়কে ভয় পায় বলেই আগামী নির্বাচন বানচালে চক্রান্ত করছে বিএনপি। দেশের মানুষকে সঙ্গে নিয়ে তাদের এই অপচেষ্টা রুখে দেয়ার প্রত্যয় আওয়ামী লীগ নেতাদের।

অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা অথবা ক্ষমতাচ্যুত করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে বিএনপি। দেশীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে তারা।

বিএনপি আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সন্ত্রাসী দল উল্লেখ করে তিনি বলেন, আবার সন্ত্রাসের পথে হাঁটলে বিএনপিকে কোনোভাবেই ছাড় দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে। এর বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। নির্বাচনে অংশ না নিলে বিএনপির অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাবে। রাজনৈতিকভাবে বিএনপিকে বিতাড়িত করতে হবে।

এদিকে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে অংশ নিয়ে আইনমন্ত্রী বলেন, বিএনপির কোনো ষড়যন্ত্রই সফল হবে না। একই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলে দলের সভাপতিমণ্ডলীর জাহাঙ্গীর কবির নানক এবং জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি র আ ম উবায়দুল মুকতাদির চৌধুরী।

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বিএনপির উদ্দেশে বলেন, ‘আপনারা আবার যদি ১৫ আগস্টের কথা বলে ষড়যন্ত্র করেন, আইনের মাধ্যমে আপনাদের দাঁতভাঙা জবাব দেয়া হবে। এর মাধ্যমে আপনাদের যে শাস্তি দেয়া উচিত, সেই শাস্তিই দেয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা চাই গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে সব রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড চলুক। আপনারা ষড়যন্ত্র করে এ দেশে কিছু করতে পারবেন না। আর যদি ষড়যন্ত্র করেন, আমাদের দেশের দণ্ডবিধি আছে, আমরা সেটাই ব্যবহার করব।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা বলছেন, শেখ হাসিনাকে হত্যা করবেন! চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলছি, আসেন দেখি আপনাদের বুকের পাটা কতটুকু আছে। বাংলার মানুষ রাস্তায় আপনাদের পিটিয়ে শায়েস্তা করবে।’ সব ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সজাগ থাকার পাশাপাশি ঐক্যবদ্ধভাবে ষড়যন্ত্র প্রতিহত করা হবে বলে জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, লন্ডনে বসে ওই মানি লন্ডারিং মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামির প্ররোচনায় আপনারা কেবল লাফান আর হত্যা ও সরকার উৎখাতের হুমকি দেন। প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দিচ্ছেন? মির্জা ফখরুল সাহেব মনে রাখবেন, বাংলাদেশে আর কোনোদিন পঁচাত্তর ফিরে আসবে না।

এ সময় সব ষড়যন্ত্রের দাঁতভাঙা জবাব দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি জনগণকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান।

সরকারবিরোধী যেকোনো অপচেষ্টা প্রতিহত করতে নেতাকর্মীদের পাশাপাশি জনগণকে সজাগ থাকার আহ্বান জানান আওয়ামী লীগ নেতারা।

জনপ্রিয় সংবাদ