Sunday, February 25, 2024

আবারও একসঙ্গে তিন কন্যা: ফিরে দেখা ২০০৬

তারিখ:

আবারও একসঙ্গে তিনজন ঘুরতে বের হওয়া, ফ্রেমবন্দি হওয়া, আড্ডা-গল্পে দিন পার। ঠিক যেন ফিরে যাওয়া সেই ১৫ বছর আগে। বেড়েছে বয়স, বদলেছে জীবনের গল্প; কিন্তু উত্তেজনায় ভাটা পড়েনি এতটুকুও। বলছি দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় সুন্দরী প্রতিযোগিতার পরিচিত তিন মুখ౼মম, বাঁধন ও বিন্দুর কথা।

২০০৬ সালে রাস্তায় বের হলেই বড় বড় বিলবোর্ডে দেখা মিলত তিন নতুন মুখের ছবি। উপরে লেখা একটাই: ‘কে হতে যাচ্ছে এবারের বিজয়ী।’ পাড়ার মোড়ে চায়ের দোকানে কিংবা স্কুলের টিফিনের ফাঁকে আড্ডার কেন্দ্রবিন্দুতেও তখন এ আলোচনা। কার ভক্ত বেশি, কে বেশি সুন্দরী, কার মাথায় উঠবে এবারের মুকুট౼সেসব নিয়েই যত জল্পনা-কল্পনা।

এরপর বছর বছর এ প্রতিযোগিতা আয়োজিত হলেও সর্বাধিক জনপ্রিয় মৌসুমের অংশ ছিলেন জাকিয়া বারী মম, আজমেরী হক বাঁধন আর আফসানা আরা বিন্দু। শেষমেশ বিজয়ী হন জাকিয়া বারী মম, দ্বিতীয় হন আফসানা আরা বিন্দু এবং তৃতীয় হন আজমেরী হক বাঁধন। এরপর দুয়ার খুলে যায় এই তিন তরুণ শিল্পীর ভাগ্যের। একের পর এক নাটক, সিনেমায় ডাক পেতে থাকেন তারা। কিন্তু হঠাৎই ব্যক্তিজীবনের গহ্বরে হারিয়ে যেতে থাকেন বিন্দু ও বাঁধন। একনাগাড়ে কাজ করতে থাকেন জাকিয়া বারী মম। বিয়ে করেন নির্মাতা শিহাব শাহীনকে।

সম্প্রতি বেশ জোরেশোরেই ফিরে এসেছেন আজমেরী হক বাঁধন। ব্যক্তিজীবনের টানাপোড়েন কাটিয়ে ক্যারিয়ারের চাকা আবারও সচল করতে পাড়ি জমিয়েছেন আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও। সিনেমায় দেখা যাচ্ছে জাকিয়া বারী মমকেও। তবে হারিয়ে গেছেন আফসানা আরা বিন্দু। ক্যামেরার সামনে খুব একটা ধরা দেন না ‘দারুচিনি দ্বীপ’ খ্যাত এই অভিনেত্রী। তবে বাংলাদেশি দর্শকের নস্টালজিয়ার পালে হাওয়া দিতে আবারও একসঙ্গে ফ্রেমবন্দি হয়েছেন এই তিন কন্যা।

একটি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করার সুবাদে অনেকদিন পর সময় কাটিয়েছেন মম, বিন্দু ও বাঁধন। দিনভর আড্ডায় মেতেছিলেন তারা। নতুন করে নিজেদের মধ্যে বন্ধুতার বন্ধন পরখ করে নেন আরও একবার।

জনপ্রিয় সংবাদ