Wednesday, February 28, 2024

আগামী সপ্তাহেই নতুন নির্বাচন কমিশন

তারিখ:

আগামী সপ্তাহেই নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশনারদের পাচ্ছে ইসি। পদগুলোতে নিয়োগের লক্ষ্যে অনুসন্ধান (সার্চ) কমিটি বাছাই করা ১০ জনের নাম রাষ্ট্রপতির কাছে জমা দেবে আজ।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় সার্চ কমিটির সদস্যরা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির হাতে তালিকা তুলে দেবেন। এরপর রাষ্ট্রপতির নির্দেশনা অনুযায়ী নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশন সদস্যদের নাম প্রজ্ঞাপন আকারে ঘোষণা করবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এ সংক্রান্ত আনুষ্ঠানিকতা শেষে দেশবাসী আগামী সপ্তাহেই নতুন গঠিত ইসি দেখবে।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের মাধ্যমে সার্চ কমিটির সদস্যদের দায়িত্ব শেষ হতে যাচ্ছে। আজ প্রজ্ঞাপন হবে কিনা জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, আজই এ বিষয়ে জানতে পারবেন। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, আজ প্রজ্ঞাপন হয়ে গেলে নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশনাররা প্রধান বিচারপতির কাছ থেকে শপথ গ্রহণ করবেন। প্রজ্ঞাপন প্রকাশের পরপরই শপথ নেওয়ার দিন ও সময় নির্ধারণ হবে।

এদিকে সার্চ কমিটির সদস্য ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা করোনা টেস্ট দিয়েছেন। যাদের করোনা নেগেটিভ আসবে তারা বঙ্গভবনে যাবেন। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, আজ সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার মধ্যে সবাইকে বঙ্গভবনে থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন সার্চ কমিটির সভাপতি ও আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি ওবায়দুল হাসান। ২৭ জানুয়ারি নির্বাচন কমিশন গঠনে প্রথমবারের মতো আইন প্রণয়ন করে সরকার।

এরই ধারাবাহিকতায় ৫ ফেব্রুয়ারি আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি ওবায়দুল হাসানকে সভাপতির দায়িত্ব দিয়ে ছয় সদস্যের সার্চ কমিটি গঠন করে দেন রাষ্ট্রপতি। এরপর সার্চ কমিটির প্রথম বৈঠকে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল ও সুধীজনের কাছ থেকে নাম আহ্বানের সিদ্ধান্ত হয়। একইসঙ্গে বিশিষ্টজনদের সঙ্গে বৈঠক আহ্বান করে সার্চ কমিটি। সরাসরি ও ইমেইলের মাধ্যমে সার্চ কমিটির কাছে প্রায় পাঁচশজনের নাম জমা পড়ে।

এসব নাম থেকে প্রথম দফায় ১৪ ফেব্রুয়ারি কমন নাম বাদ দিয়ে ৩২২ জনের তালিকা প্রকাশ করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এরপর বিশিষ্টজনদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকের মাধ্যমেও বেশ কিছু নাম পায় সার্চ কমিটি। সেখানেও কিছু কমন নাম বাদ দিয়ে তালিকায় প্রস্তাবিত নামের সংখ্যা দাঁড়ায় ৩২৯ জনে। এসব নাম থেকে একাধিক দফায় বৈঠক করে ২০ জনের নাম বাছাই হয়, দ্বিতীয় দফায় সেটা ১২-১৩ জনে আসে। মঙ্গলবার সার্চ কমিটির সর্বশেষ বৈঠকে ১০ জনের নাম চূড়ান্ত হয়। কিন্তু এ দশজনের নাম প্রকাশ না করার সিদ্ধান্ত নেয় সার্চ কমিটি।

কমিটির বাছাই করা ১০টি নাম প্রকাশের জন্য বিশিষ্টজনদের পক্ষ থেকে আগে থেকেই দাবি ছিল। কিন্তু তারা প্রথমে বিষয়টি বিবেচনা করা হবে জানালেও পরবর্তী সময়ে নাম প্রকাশ না করার সিদ্ধান্ত নেন। এদিকে তথ্য অধিকার আইনের অধীনে ‘তথ্য প্রাপ্তির আবেদনপত্র’তে তিন দিনের মধ্যে নাম প্রকাশের আবেদন জানিয়েছেন সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগর তথ্য প্রদানে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উপসচিব আসাদুল হক বরাবর আবেদনে সার্চ কমিটিতে প্রস্তাবিত কার নাম কে প্রস্তাব করেছে তা জানতে চাওয়া হয়েছে। আবেদনে নির্বাচন কমিশন গঠনে প্রণীত নতুন আইনের ৪(১) ধারা উল্লেখ করে ‘স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতা’ নিশ্চিত করতে পরিপূর্ণ তালিকা অর্থাৎ কে কার নাম প্রস্তাব করেছে তা প্রকাশের কথা বলা হয়েছে।

বদিউল আলম আবেদনে দাবি করেন, রাজনৈতিক দল ও তাদের প্রস্তাবিত নাম কোনো গোপন বিষয় নয়। এ বিষয়ে উচ্চ আদালতের একটি রায়ের রেফারেন্স দিয়ে আবেদনে বলা হয়েছে, ‘কর্তৃপক্ষ’র কাছে থাকা সব তথ্য ‘পাবলিক ইনফরমেশন’, তাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এসব তথ্য প্রকাশ করতে বাধ্য।

জনপ্রিয় সংবাদ