Friday, March 1, 2024

‘কেউ যদি নৌকা মার্কার ভোটে হাত দেয়, তাহলে উনাদের কলিজা টেনে বের করব’

তারিখ:

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান বলেছেন, আগামী ১৬ জানুয়ারি কেউ যদি আমাদের নৌকা মার্কার ভোটে হাত দেয়, তাহলে আমরা তার কলিজার ভেতরে হাত দিব। উনাদের কলিজা টেনে বের করব। আপনারা ভয়ভীতির ঊর্ধ্বে উঠে নৌকায় ভোট দিয়ে ওদের মুখে চুনকালি লাগাই দিয়ে বলবেন, বন্দরের মানুষ বিশ্বাসঘাতকদের জায়গা দেয় না।

শুক্রবার বিকালে বন্দরের নবীগঞ্জ কবিলের মোড় এলাকায় আওয়ামী লীগের কর্মী সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। কর্মী সমাবেশটি বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের ব্যানারে আয়োজন করা হয়।

আব্দুর রহমান বলেন, “হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতি প্রমাণ করে দিয়েছে আগামী ১৬ তারিখ কোনও ষড়যন্ত্রকারী নৌকা মার্কাকে পরাজিত করতে পারবে না। নৌকা বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে।”

 

তিনি আরও বলেন, “আমি এবং নানক নেত্রীর সঙ্গে কথা বলার জন্য গিয়েছিলাম নারায়ণগঞ্জের নির্বাচনের অবস্থা জানাতে। তিনি বললেন- ‘আমার কাছে খবর আছে, আমার আইভী লক্ষাধিক ভোটে বিজয়ী হবে।’ আপনারা নৌকাকে বিজয়ী করেন, শেখ হাসিনা আপনাদের জন্য বিরাট উপহার রাখছে সেই উপহার আপনারা পাবেন।”

বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রশীদের সভাপতিত্বে ওই সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবীর নানক। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, এসএম কামাল, সুজিত রায় নন্দী, শাহাবউদ্দিন ফরাজি, সাবেক এমপি সানজিদা খানম।

এছাড়াও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাংসদ মির্জা আজম  ও নজরুল ইসলাম বাবু মঞ্চে উপস্থিত থাকলেও নির্বাচনী আচরণবিধির প্রতি সম্মান জানিয়ে তারা কোনও বক্তব্য রাখেননি।

সমাবেশে নারায়ণগঞ্জের নেতৃবৃন্দদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য অ্যাড. আনিসুর রহমান দিপু, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদল, মহানগর আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি অ্যাড. খোকন সাহা, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত, বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি কাজিম উদ্দিন প্রধান, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাসনাত রহমান বিন্দু প্রমুখ।

জনপ্রিয় সংবাদ