Wednesday, February 28, 2024

৫৪১-এ ইনিংস ঘোষণা বাংলাদেশের

তারিখ:

৫৪১-এ ইনিংস ঘোষণা বাংলাদেশের

পাল্লেকেল্লেতে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে অনুষ্ঠিত প্রথম টেস্টে আলোকস্বল্পতা না থাকলে দিনের পুরো খেলা মাঠে গড়ালে হয়তো দ্বিতীয় দিনের ইনিংস ঘোষণা করতো বাংলাদেশ। যার কারণে তৃতীয় দিন পর্যন্ত ব্যাট করতে হয়েছে টাইগারদের।

এদিন প্রথম সেশনের শুরুতেই ফিফটি তুলে নেন ক্রিজে থাকা মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। তবে ৫০ করেই সাজঘরে ফেরেন লিটন। তার উইকেট পতনের পর শুরু ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার প্রতিযোগিতা। তবে একপাশ আগলে রাখেন মুশফিক। অপরাজিত হয়েই মাঠ ছেড়েছেন তিনি।

বাংলাদেশ ঠিক কতো রানে ইনিংস ঘোষণা করতে পারে তা নিয়ে গতকাল জল্পনা-কল্পনার যেন শেষ ছিলো না। গতকাল কোচ ডোমিঙ্গা বলেন, ‌‘কত রানে ইনিংস ঘোষণা করতে চাই, এটা ঠিক করতে রাতে আমরা আলোচনা করবো। তবে কাল (শুক্রবার) সকালে আমাদের দ্রুত কিছু রান লাগবে। যদি ৫২০ রানের আশেপাশে যেতে পারি, তাহলে আমরা শ্রীলঙ্কাকে চাপে ফেলার সুযোগ পাবো।’

 

তার কথা মতোই ৫৪১ রানে ইনিংস ঘোষণা করেছে সফরকারিরা। এসময় ৭ উইকেট খুইয়েছে তাদের।

 

 

এমডি নেই, বোর্ড সভা বন্ধ, তবু ঋণ দিচ্ছে ন্যাশনাল ব্যাংক

 

 

বেসরকারি খাতের ন্যাশনাল ব্যাংকে দীর্ঘদিন পূর্ণাঙ্গ ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) নেই। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে বারবার নির্দেশনা দেওয়ার পরও ব্যবস্থা নিচ্ছে না ব্যাংকটি। এবার এমডি নিয়োগে চূড়ান্ত নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। আগামী ২৮ এপ্রিলের মধ্যে স্থায়ী এমডি নিয়োগ দিতে না পারলে প্রশাসক বসানো হবে বলেও সতর্ক করা হয়েছে।

 

 

 

সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে ন্যাশনাল ব্যাংকের চেয়ারম্যান মনোয়ারা সিকদারকে এ বিষয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, ২৮ এপ্রিলের মধ্যে এমডি নিয়োগ না দিলে ব্যাংক কোম্পানি আইনের ১৫-ক ধারা অনুযায়ী কেন্দ্রীয় ব্যাংক ব্যবস্থা নেবে।

 

 

 

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম গতকাল জানান, আইন অনুযায়ী তাদের স্থায়ী এমডি নিয়োগ দিতে হবে। দীর্ঘদিন এ পদ খালি রাখা যাবে না। এ ধরনের একটি নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের রয়েছে। ব্যাংক কোম্পানি আইনেও এটা বলা আছে। আইন অনুযায়ী তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

 

 

 

ব্যাংক কোম্পানি আইনের ১৫-ক ধারার ২ উপধারায় বলা হয়েছে, কোনো ব্যাংকের এমডি পদ একাধারে তিন মাসের বেশি শূন্য রাখা যাবে না। ৩ উপধারায় বলা হয়েছে, এ সময়ের মধ্যে এমডি পদ পূরণ না হলে বাংলাদেশ ব্যাংক প্রশাসক নিয়োগ দিতে পারে, যিনি ব্যাংকের এমডির দায়িত্ব পালন করবেন। আইন অনুযায়ী আগামী ২৮ এপ্রিলের মধ্যে এমডি নিয়োগ না দিলে ব্যাংকটিতে প্রশাসক দিতে পারবে বাংলাদেশ ব্যাংক।

এদিকে ঋণ বিতরণে অনিয়ম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) না থাকা, ক্ষমতার দ্বন্দ্বে পরিচালনা পর্ষদে শুরু হয়েছে বিবাদ। সব মিলিয়ে অস্থির অবস্থায় ন্যাশনাল ব্যাংক। এর আগে ব্যাংকটির অতিরিক্ত এমডি এ এস এম বুলবুল এমডির চলতি দায়িত্বে ছিলেন। কিন্তু মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তাকে সরিয়ে দিতে বলে বাংলাদেশ ব্যাংক। পরে ব্যাংকটির চেয়ারম্যান মনোয়ারা সিকদার তার মেয়াদ বাড়ান, যা কার্যকর হয় ১ এপ্রিল থেকে। কিন্তু বিষয়টি বিধি পরিপন্থি হওয়ায় তাকে চলতি দায়িত্ব থেকে বিরত রাখতে আরেকবার (৬ এপ্রিল) নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ঐ নির্দেশের পর এ এস এম বুলবুলকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিয়ে উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহ সৈয়দ আবদুল বারীকে ভারপ্রাপ্ত এমডির দায়িত্ব দেয় ব্যাংকটির পর্ষদ। ২৮ এপ্রিল ব্যাংকটির স্থায়ী এমডি পদ শূন্য থাকার তিন মাস পূর্ণ হবে।

জনপ্রিয় সংবাদ